সেলিমের গাড়ী বহরে হামলার মামলায় দুই আসামীর জামিন না মঞ্জুর

স্টাফ রিপোর্টার ॥ কেন্দ্রীয় যুব লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা যুব লীগের সভাপতি আতাউর রহমান সেলিমের গাড়ি বহরে হামলার ঘটনায় দ্রুত বিচার আইনে দায়েরকৃত মামলায় ২ আসামীকে কারাগারে প্রেরণ করেছেন আদালত। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় আসামীরা হবিগঞ্জ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শাহীনুর আক্তার এর আদালতে মামলার প্রধান আসামী সুশান্ত দাশ গুপ্তের ছোট ভাই আসামী সুমন্ত দাশ গুপ্ত তনু ও সুজন মিয়া হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে আদালত তাদের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরন করেন। উল্লেখ্য, গত ৩ এপ্রিল জেলা যুবলীগ সভাপতি আতাউর রহমান সেলিম বানিয়াচং উপজেলায় দলীয় একটি কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে হবিগঞ্জ শহরে ফেরার পথে সুনারু গ্রামের বাসিন্দা সুশান্ত দাশ গুপ্তের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী তাদের গাড়ি বহরে হামলা চালায় এবং অগ্নিসংযোগ করে। এ ঘটনায় সুশান্ত দাশগুপ্তসহ ১৪ জনকে আসামী করে আতাউর রহমান সেলিমের ছোট ভাই সাইদুর রহমান বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেন। পরে ২৪ জুন হবিগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলামের আদালত মামলার প্রধান আসামী সুশান্ত দাস গুপ্ত, সুমন্ত দাস গুপ্ত তনু, ইউপি সদস্য প্রদীপ দাস, সুজন মিয়া, নজীর মিয়া, রিংকু দাস, দিমান দাস, রাজিব চৌধুরী, মিন্টু দাস, চঞ্চল দাস, মানিক দাস, গবিন্দ দাস, পরিমল দাস ও সুমন দাস হরিসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেন। এ বিষয়ে গতকাল উল্লেখিত সময়ে মামলার আসামী সুশান্ত দাশ গুপ্তের ছোট ভাই বানিয়াচং উপজেলার সুনারু গ্রামের সুমন্ত দাশ গুপ্ত তনু ও অপর আসামী একই উপজেলার পাথারিয়া গ্রামের মৃত আলা উদ্দিনের পুত্র সুজন মিয়া আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে আদালত তাদেরকে আটক করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। মামলাটি পরিচালনা করছেন সাবেক পিপি এডভোকেট এম. আকবর হোসেন জিতু। এছাড়াও আটককৃতরা শহরের কালীগাছ তলা এলাকার প্রহল্লাদ কর্মকারের দায়ের করা দ্রুত বিচার আইনের মামলার পলাতক আসামী ও শহরের আলোচিত ছোট শিশু অর্ঘ অপহরণ মামলার আসামী বলে জানিয়েছেন বাদী সাইদুর রহমান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *