নদী বিলুপ্তির কারণ প্রকৃতির উপর মানুষের অযাচিত হস্তক্ষেপ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ। সারাদেশে জালের মতো বিস্তৃত ছিল অসংখ্য নদনদী। আজ থেকে ৫০/৬০ বছর আগেও প্রায় ১২শ ৫০টি নদী ছিল এই দেশে। দিনে দিনে তা কমে এসে প্রায় ৩শ’ টিতে দাঁড়িয়েছে। সময়ের ধারাবাহিকতায় হারিয়ে গেছে অনেক নদী। আরও অনেক নদী বিলিন প্রায়। নদীর এ ক্রমবিলুপ্তির কারণ প্রকৃতির উপর মানুষের অযাচিত হস্তক্ষেপ। এক সময় হবিগঞ্জের উপর দিয়েও প্রবাহিত হত প্রায় ৫০টি নদ-নদী। এখন এর অর্ধেকও খুঁজে পাওয়া যায় না। মানুষের অদূরদর্শিতার কারণে দিন দিন মৃত্যুর মুখে পতিত হচ্ছে অনেক নদনদী। তাই সময় এসেছে দেশের প্রাণপ্রবাহরূপী এসব নদনদীকে রক্ষায় আন্দোলন গড়ে তোলার। গত শনিবার সকাল ১০টায় বাংলা নতুন বছর ১৪২৫ কে স্বাগত জানিয়ে শিরিষতলায় মানব্বন্ধন ও পথসভায় বক্তারা এ কথা বলেন। ‘নববর্ষে বাজে নতুন দিনের গান, নদী বয়ে যাক অবিরত, বাংলাদেশের প্রাণ’ স্লোগান নিয়ে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) হবিগঞ্জ ও খোয়াই রিভার ওয়াটারকিপার আয়োজিত ‘হবিগঞ্জের ভরাট ও দখল হয়ে যাওয়া সকল নদী খনন ও পুনরুদ্ধার’ এর দাবিতে আয়োজিত কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন বাপা হবিগঞ্জের সভাপতি অধ্যাপক মোঃ ইকরামুল ওয়াদুদ। খোয়াই রিভার ওয়াটারকিপার তোফাজ্জল সোহেল বলেন, উজানে ভারত সরকার কর্তৃক পানি সীমিতকরণ, দেশের অভ্যন্তরে নদী দখল, নদী দূষণ, পলি পতন, নদী-ভাঙ্গনে পরিবেশের মারাত্মক বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। রাষ্ট্রীয়, প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তিগত উদ্যোগে দখল-ভরাট, স্থাপনা নির্মাণ এর ফলে নদীর নাব্যতা ক্রমশ হ্রাস পাচ্ছে, অনেকগুলো নদী শুকিয়ে মৃতপ্রায় এবং অনেক নদী হারিয়ে গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *