বাহুবলে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ২০ লাখ টাকার ক্ষতি ॥ খোলা আকাশের নিচে ৫ পরিবার

নিজস্ব প্রতিনিধি ॥ বাহুবলে অগ্নিকা-ে দুই বসতঘর পুড়ে ছাঁই হয়ে গেছে। এতে প্রায় ২০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যরা। এ দূর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৫ পরিবারের সদস্যরা খোলা আকাশের নিচে ঠাই নিয়েছেন। গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ৬টায় উপজেলার সাতকাপন ইউনিয়নের তেলিকান্দি গ্রামে এ অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল সকাল ৬টায় তেলিকান্দি গ্রামের মৃত আব্দুল মনাফের পুত্র আবুল কালামের বসতঘরে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত ঘটে। এতে নিমিষেই আগুণের লেলিহান শিখা দাউ দাউ করে ঘরের চর্তুদিকে ছড়িয়ে পড়ে। তখন বসতঘরে ঘুমন্ত লোকজন প্রাণ বাঁচিয়ে ঘর থেকে বের হতে পারলেও কোন জিনিসপত্রই রক্ষা করা যায়নি। ক্ষতিগ্রস্ত আবুল কালাম জানান, আমরা ঘর থেকে বের হতে না হতেই আমার নিজের বসতঘর এবং পার্শ্ববর্তী ঘরের বাসিন্দা মৃত আইয়ুব আলীর পুত্র দরবেশ আলী, সমুজ আলী, নূর আলী ও আবিদ আলীর বসতঘরও পুড়ে ছাঁই হয়ে যায়। আমরা কেউই ঘর থেকে কোন কিছু বের করতে পারিনি। তিনি আরও জানান, তার নিজের বসতঘর নির্মাণের জন্য সঞ্চিত নগদ ৪ লাখ টাকা, অন্যান্যদের আরও প্রায় ৮ লাখ টাকাসহ সর্বমোট ২০ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে ছাঁই হয়ে গেছে। এদিকে ঘটনার পরপরই উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্তদের শান্তনা দেন এবং সরকারি সহায়তার আশ্বাস প্রদান করেন। দুপুর ২টার দিকে বাহুবল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জসীম উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে নগদ ৩০ হাজার টাকা প্রদান করেন। এ সময় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আব্দাল মিয়া, বাহুবল মডেল প্রেস ক্লাবের অর্থ ও দপ্তর সম্পাদক সাংবাদিক মনিরুল ইসলাম শামিম প্রমুখ। একই সময় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আব্দাল মিয়া ক্ষতিগ্রস্ত মহিলাদের মাঝে শাড়ি বিতরণ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *